ফ্রিল্যান্সারদের নতুন ঠিকানা -KajKey.com: First Bengali freelancing marketplace

হ্যালো বন্ধুরা, কেমন আছেন সবাই? হয়তো ভালো আছেন। তবে কতটুকু?
বিশেষত যারা নব্য ফ্রিল্যান্সার তারা হয়তো ভালো নেই। বারং বার অজস্র প্রোজেক্টে বিড করেও কাজ পাচ্ছেন না কিংবা দিন যায় মাস যায় গিগে কোনো অর্ডার নেই ।নো টেনশন, আজ আপনাদের সফলতার আরও একটি রাস্তার সন্ধান দেবো।
আজ আমি আপনাদের পরিচয় করিয়ে দিতে যাচ্ছি নব্য প্রতিষ্ঠিত একটি সফল বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসের সাথে। মার্কেটপ্লেসটির নাম হচ্ছে KajKey.com।আপনারা ইতিমধ্যে হয়তো সাইটটির বিজ্ঞাপন নিউজপেপার বা অন্য মাধ্যমে পেয়ে থাকবেন। তো যাই হোক সেদিকে আর বেশিদূর যাচ্ছি না।
প্রতিষ্ঠানটি ২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাসে যাত্রা শুরু করে। যতদুর সম্ভব জানা যায় সাইটটির এডমিন সাব্বির আহমদ নামের একজন ব্যক্তি। মাত্র এই ক’দিনেই প্রতিষ্ঠানটির মাধ্যমে ২ হাজারটিরও বেশি কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

এই সাইটটিতে দুইটি ভিন্ন পদে জয়েন করা যায়।
যথাঃ এমপ্লয়ার হিসাবে এবং ফ্রিল্যান্সার হিসাবে ।
এমপ্লয়ার হিসাবে জয়েন করলে সাইটটিতে আপনি আপনার কাজ (যেগুলো করানোর জন্য কর্মী খুজছেন) পোস্ট করতে পারবেন ।এবং ফ্রিল্যান্সার হিসাবে জয়েন করলে সেই কাজগুলোর জন্য apply করতে পারবেন।
একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে অন্যসব সাইটের মতই নিজের ফ্রিল্যান্সার প্রোফাইলে skills অ্যাড করার সুবিধা রয়েছে। তাছাড়া আপনার রেজিস্ট্রেশনের সময় আপনার দেওয়া অনুমতি সাপেক্ষে আপনার দক্ষতার সাথে মিল থাকা কাজ/প্রোজেক্ট পোস্ট করা হলে সেগুলোর আপডেট আপনার ইমেইলেই পাবেন।
অন্যসব সাইটের মতই বিড করার সময় এমাউন্ট , কাজের জন্য প্রয়োজনীয় সময় এবং আপনার মতামত উল্লেখ করে দিতে পারবেন। আপনার বিডের প্রত্যুত্তরের জন্য এমপ্লয়াররা আপনাকে ম্যাসেজ করতে পারবেন। সেই ম্যাসেজের নোটিফিকেশন আপনি ইমেইল মারফত পেয়ে যাবেন।
আপনার বিডকে এক্সেপ্ট করতে হলে আপনার বিডে যে পরিমান টাকা উল্লেখ করেছেন সেই পরিমান টাকা তাদেরকে আগে সাইটে ডিপোজিট করতে হবে। এতে করে প্রতারণার স্বীকার হওয়ার কোনো সন্দেহ নেই। কাজটি আপনি পেয়ে গেলে তা শেষ করার পর এমপ্লয়ার আপনার পেমেন্ট ক্লিয়ার করে

দেবেন এবং টাকাগুলো আপনার একাউন্টে চলে আসবে। তবে তৎক্ষণাত আপনি টাকাগুলো withdraw করতে পারবেন না। আপনার একাউন্টে টাকা আসলেও যতক্ষন না সেটা এভেইল-এবল ব্যালেন্স এ অ্যাড হবে ততক্ষন আপনি কিছুই করতেপারবেন না।প্রতিষ্ঠানটির কর্তৃপক্ষ বিষয়টি
পর্যালোচনা (review) করবে এবং তাদের কথা অনুযায়ী ৭ দিনের মধ্যেই সেটা এভেইল-এবল ব্যালেন্স এ অ্যাড হবে। তখন withdraw request দিলে ১-২ দিনের মদ্ধে সেটা আপনাকে প্রেরণ করবে।
তাছাড়া এমপ্লয়ার/ফ্রিল্যান্সার হিসাবে যেকোনো সাহায্যের জন্য তাদের ফেসবুক পেজ এ যোগাযোগ করতে পারেন। সকল কর্মদিবসে তারা অতি-দ্রুত রেসপন্স করে।
সুবিধাসমূহঃ
খুব সহযেই নিজের দেশের মানুষের থেকে কাজ করার সুযোগ পাচ্ছেন।
মাতৃভাষা বাংলাতেই যোগাযোগ স্থাপন করতে পারছেন।
যেকোনো প্রয়োজনে ফেসবুক পেজের মাধ্যমে লাইভ সাপোর্ট।
প্রতারণার ঝুঁকি নেই।
অসুবিধাসমূহঃ

সার্ভিস চার্জ ২৫% ;যেটা আমার কাছে তেমন পছন্দ হয় নি।
ফ্রিল্যান্সার হয়ে আপনি এমপ্লয়ারের সাথে ম্যাসেজ সিস্টেমের মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারবেন না যতক্ষন না ওনি আপনাকে ইনবক্সে নক করছেন।
বিড এক্সেপ্ট করার আগে কোনো ধরনের সামাজিক যোগযোগ মাধ্যম/মোবাইল নম্বর শেয়ার করা যাবে না।*

ওয়েবসাইট ছাড়া এক্সটার্নাল লেনদেন সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।*
*তারকাচিহ্নিত কারন সহ তাদের অন্যান্য নীতিমালাসমূহের কোনোও একটি অমান্য করলে এবং তা ধরা পড়লে প্রথমবার ৭ দিনের জন্য একাউন্ট ব্যান করা হবে এবং পরবর্তীতে আবার অনুরূপ কাজ করলে বিনা নোটিশে আজীবনের জন্য একাউন্ট ব্যান করা হবে।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *